ফাস্ট বোলারদের সামলাতে দলে ইমরুল | ইবিডি নিউজ
শনিবার, নভেম্বর ১৭পরীক্ষা মূলক

ফাস্ট বোলারদের সামলাতে দলে ইমরুল

ফাস্ট বোলারদের সামলাতে দলে ইমরুলটি-টোয়েন্টিতে ব্যাটিং রেকর্ড দেখে বোঝা মুশকিল টপ অর্ডার নাকি লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যান; তার পরও দলে ফিরলেন ইমরুল কায়েস । ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের বাংলাদেশ দলে সবচেয়ে বড় চমক হয়ত ইমরুলের ফেরাই। সেটির কারণ ব্যাখ্যায় প্রধান নির্বাচক শোনালেন আরও বিস্ময়কর তথ্য। শ্রীলঙ্কায় ফাস্ট বোলারদের সামলাতে নেওয়া হয়েছে এই বাঁহাতি ওপেনারকে!

টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে ইমরুল খেলেছেন ১৪টি ম্যাচ; যা বাংলাদেশের বাস্তবতায় খুব কম নয়। ব্যাটিং গড় বেশ বিব্রতকর, ৯.১৫। সর্বোচ্চ ৩৬। স্ট্রাইক রেট নব্বইয়ের নিচে।

সবশেষ দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে দুটি টি-টোয়েন্টি খেলে করেছিলেন ১০ ও ৬। দেশের মাটিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে তাই জায়গা হয়নি। আবার ফিরলেন শ্রীলঙ্কা সফরের দলে।

এমন বিবর্ণ রেকর্ডের একজন ব্যাটসম্যানকে কেন ফেরানো হলো, সেই ব্যাখ্যা দিলেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন।

“ইমরুল কায়েসর অন্তর্ভুক্তি তৃতীয় ওপেনার হিসেবে। আমরা চাচ্ছি, যারা ফাস্ট বোলিংয়ের বিপক্ষে ভালো ব্যাটিং করতে পারে, এমন একজনকে নিতে। যেহেতু ইমরুল আমাদের টেস্ট ওপেনার। শ্রীলঙ্কার কন্ডিশনে পেসারদের আধিক্য থাকবে। এখানে আপনারা দেখেছেন শ্রীলঙ্কা পেসারদের নিয়ে খেলেছে। ভারতও অনেক পেসার নিয়ে খেলে। ওই সব চিন্তা করেই তৃতীয় ওপেনার হিসেবে ওকে নেয়া।

উপমহাদেশের আর প্রায় সব উইকেটের মত শ্রীলঙ্কায়ও উইকেট সাধারণত থাকে স্পিন সহায়ক। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে অনেক সময় ব্যাটিং সহায়কও থাকে উইকেট। কিন্তু শ্রীলঙ্কার কন্ডিশনে পেসারদের আধিক্য থাকে, প্রধান নির্বাচকের এই কথা তাই জন্ম দিচ্ছে নতুন প্রশ্নের।

প্রশ্ন উঠল আরও। ফাস্ট বোলারদের ইমরুলের চেয়ে ভালো খেলেন, এমন তৃতীয় ওপেনার কি নেই দেশে? প্রধান নির্বাচকের ঢাল এবার ইমরুলের অভিজ্ঞতা।

“অবশ্যই আছে। আমরা অভিজ্ঞতাকে একটা কারণেই মূল্যায়ন করেছি যে, যেহেতু আমাদের শ্রীলঙ্কা সিরিজটা খুব খারাপ গেছে। এখন যদি সে অভিজ্ঞতাটা কাজে লাগাতে পারে!”