পদত্যাগ করেছেন মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট | ইবিডি নিউজ
শনিবার, নভেম্বর ১৭পরীক্ষা মূলক

পদত্যাগ করেছেন মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট

পদত্যাগ করেছেন মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট থিন কিয়াও। বুধবার তার দপ্তর থেকে এই ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

বিবিসি জানিয়েছে, পদত্যাগের ব্যাপারে কিছু জানানো হয়নি মিয়ানমার সরকারের পক্ষ থেকে। তবে সম্প্রতি স্বাস্থ্যগত সংকটের কারণে রাষ্ট্র পরিচালনার ব্যাপারে ৭১ বছর এই নেতার সমস্যা দেখা যাচ্ছিল।

২০১৬ সালে কয়েক দশকের সামরিক শাসনের অবসানের পর নির্বাচনে রাষ্ট্রপতি হন থিন কিয়াও। তবে প্রকৃতপক্ষে অনেকটা প্রতীকী রাষ্ট্রপতি ছিলেন তিনি। মূল ক্ষমতা ছিল অং সান সু চির হাতে।

থিন কিয়াও সু চির ছেলেবেলার বন্ধু। দীর্ঘদিন তার গাড়িচালক ও রাজনৈতিক উপদেষ্টার দায়িত্ব পালন করেছেন।

দীর্ঘদিন মিয়ানমারের সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে সংগ্রাম করেছেন সু চি। জেলও থাটতে হয়েছে তাকে। তবে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারণে সু চির দল নির্বাচনে জয়লাভ করলেও রাষ্ট্রপতি হতে পারেননি তিনি।

মিয়ানমারের সংবিধান অনুসারে, যাদের বিদেশী সন্তান রয়েছে, তারা রাষ্ট্রপতি হতে পারবেন না। সু চির দুই ছেলে ও স্বামী ব্রিটিশ নাগরিক।

অবশ্য নির্বাচনে জয়ের পর রোহিঙ্গা ইস্যুতে আন্তর্জাতিকভাবে নিন্দিত হন এক সময়ের গণতন্ত্রপন্থি নেত্রী সু চি। সেখানে দেশটির সামরিক বাহিনী ব্যাপক গণহত্যা চালালেও তাতে রোধে ভূমিকা রাখেননি তিনি। বরং প্রচ্ছন্ন সমর্থন দিয়েছেন।